• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
বেঞ্চ ও বারের সুসম্পর্কের মধ্য দিয়ে বিচার ব্যবস্থা সমৃদ্ধ হয়- নীলফামারীতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দপুর বিজ্ঞান কলেজ চত্ত্বর থেকে কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  নীলফামারী শহরে অগ্নিকান্ডে ৫ দোকান পুড়ে ছাই জলঢাকায় মিন্টু, কিশোরগঞ্জে রশিদুল, সৈয়দপুরে রিয়াদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের বিষদাত ভেঙে দেওয়া হবে: নানক সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভজে পুত্রের জয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য মাউশির ৯ নির্দেশনা ভোটের আগেই জামিন পেলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ফুলবাড়ীতে ৪৮ রোগী পেল ২৪ লাখ টাকার চিকিৎসা সহায়তার চেক ফুলবাড়ীতে চারটি চোরাই গরু উদ্ধার, গ্রেফতার তিন

জার্মানির বিশ্বকাপ প্রস্তুতির শনির দশা

jerman coachখেলাধুলা ডেস্ক: জার্মান কোচ ইওয়াখিম ল্যোভ জার্মানির জন্য পুরো সপ্তাহটাই ছিল যেন অভিশপ্ত। কোথায় কোন খেলোয়াড় হোটেলের রিসেপশনে প্রস্রাব করে দিয়ে কেলেঙ্কারি করেছেন। কোচ ইওয়াখিম ল্যোভের ছয় মাসের জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স জব্দ হয়েছে। স্পন্সরের গাড়ি করেছে অ্যাক্সিডেন্ট।
জার্মান কোচ ইওয়াখিম ল্যোভ তার দলকে নিয়ে দক্ষিণ টিরোল-এর সেন্ট লিওনহার্ডে গেছেন ১০ দিনের চূড়ান্ত ট্রেনিং ক্যাম্পে। ক্যাম্প শুরু হওয়ার আগে ছিল জার্মান কাপ ফাইনাল- বায়ার্ন মিউনিখ বনাম বোরুসিয়া ডর্টমুন্ড। বার্লিনের সেই খেলায় জেতে বায়ার্ন কিন্তু খেলার পর ডর্টমুন্ড তথা জার্মান জাতীয় একাদশের ডিফেন্ডার কেভিন গ্রোসক্রয়েৎস বার্লিনের একটি হোটেলের রিসেপশনে প্রস্রাব করে দেন। ওদিকে আবার ওই কাপ ফাইনালেই বায়ার্ন তথা জার্মান জাতীয় একাদশের ক্যাপ্টেন ফিলিপ লাম পায়ে চোট পান এবং বায়ার্ন তথা জার্মান জাতীয় একাদশের গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার কাঁধে চোট পান।
গ্রোসক্রয়েৎস-এর কাহিনিটা আগে শেষ করা যাক। রাত যখন বাড়তে থাকে, তখন নাকি তিনি হেটেলের অন্য কয়েকজন অতিথির সাথে বচসার পর হোটেলের ফয়ারে ইয়ে করে দেন!
ল্যোভের ব্যাপারটা আরো সহজ। গাড়ি চালানোর সময় নিয়মকানুন না মানার দরুণ তার অ্যাকাউন্টে ১৮টা পেনাল্টি পয়েন্ট যুক্ত হয়েছিল, ফলে তার আগামী ছয় মাস গাড়ি চালানো বারণ করা হয়।
বাকি থাকল গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট, যাতে একজন ৬৩ বছর বয়সি জার্মান গুরুতরভাবে আহত হয়েছেন।
ব্যাপারটা আর কিছু নয় মার্সিডিজ বেঞ্জ কোম্পানির স্পন্সর করা একটি স্পোর্টিং ইভেন্ট৷ পেশাদার টুরিং কার ড্রাইভার পাসকাল ভেরলাইন চক্কর দিচ্ছিলেন জাতীয় দলের সেন্টার-ব্যাক বেনেডিক্ট হোয়ভেডেজ-কে প্যাসেঞ্জার করে। চক্কর দিচ্ছিলেন জার্মান জাতীয় দলের প্রশিক্ষণ শিবিরের কাছেই। কি করে জানি না দুর্ঘটনা ঘটে।
জার্মান জাতীয় দলের আরেক সদস্য, মিডফিল্ডার ইউলিয়ান ড্রাক্সলার-ও সেই দুর্ঘটনা ঘটতে দেখেন। হোয়ভেডেজ এবং ড্রাক্সলার-কে নাকি পরে জাতীয় দলের ক্রীড়া মনস্তত্ত্ববিদ হান্স-ডিটার হেরমান-এর কাছে পরামর্শ নিতে হয়।
এত সব গোলমালের মধ্যে আসন্ন বিশ্বকাপের কথাটা সকলের মনে আছে তো? না থাকলে মনে করিয়ে দিই। গ্রুপ ‘জি’-তে জার্মানির প্রথম খেলা ১৬ জুন তারিখে, সালভাদরে পর্তুগালের বিরুদ্ধে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ