• বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন |

অনুমতি না পেলেও সমাবেশ : বিএনপি

bnpসিসি নিউজ: অনুমতি না পেলেও আগামী ৫ জানুয়ারি ঢাকায় বিএনপি জনসভা করবে বলে জানিয়েছেন দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

জনসভা নিয়ে পুলিশ টালবাহানা করছে বলে অভিযোগ করে বৃহস্পতিবার রিজভী বলেন, অনুমতি না পেলেও তারা জনসভা করার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন।

এদিকে ছাত্রদলের দুদিনের কর্মসূচির মধ্যে শুক্রবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশও ছিল। কিন্তু পুলিশের অনুমতি পাওয়ার পরও প্রস্তুতির জন্য সময় যথেষ্ট নয় জানিয়ে সমাবেশ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

তবে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কেটে বিএনপি নেতা রিজভী জনসভার বিষয়ে তাদের অটল অবস্থানের কথা জানান।

রাজধানীতে সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে এখনো কোনো সাড়া পায়নি বিএনপি।

বৃহস্পতিবার বিকেলে দলের প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদিন ফারুকের নেতৃত্বে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল জনসভার বিষয়ে কথা বলতে বিকেলে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে যান। কমিশনারকে না পেয়ে তারা সহকারী কমিশনারের সঙ্গে কথা বলেন।

ফারুক সাংবাদিকদের বলেন, ‘নতুন পুলিশ কমিশনার গোপালগঞ্জ গেছেন। নতুন কমিশনার এলে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানা যাবে। পুলিশ কর্মকর্তা আমাদেরকে নতুন কমিশনারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেছেন।’

 রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, শাপলা চত্বর বা নয়াপল্টন এই তিন জায়গার যেকোনো একটিতে ৫ জানুয়ারি সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে ২২ ডিসেম্বর আবেদন করেছিল বিএনপি।

ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে রিজভী বলেন, ‘এক ব্যক্তির স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য ৫ জানুয়ারি সরকার তামাশার নির্বাচন করে গণতন্ত্রকে কবরস্থ করেছে। এখন তারা বলছে, ৫ জানুয়ারি ওই তামাশার নির্বাচনের বর্ষপূর্তি উদযাপন করবে।

‘আমরা গণতন্ত্র হত্যার ওই দিন ঢাকায় জনসভার অনুমতি চেয়ে পুলিশের কাছে ইতোমধ্যেই আবেদন করেছি। আমাদের নেতারা মহানগর পুলিশ দপ্তরে গিয়েছিলেন। তারা (পুলিশ) বলেছে, জনসভার অনুমতি দেবে না। আমরা স্পষ্টভাষায় বলে দিতে চাই, ৫ জানুয়ারি আমাদের কর্মসূচি করতেই হবে। এই লক্ষ্য নিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।’

ছাত্রদলের বর্তমান নেতা-কর্মীদের নিয়ে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন রিজভী। এসময় সাবেক নেতা শিরিন সুলতানা, আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের দিন ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবসে’ সারাদেশে সমাবেশ ও কালো পতাকা মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি। অন্যদিকে ওই দিন ‘সংবিধান ও গণতন্ত্র রক্ষা দিবস’ হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়ে রাজপথে সেদিন যে কোনো নাশকতা মোকাবেলার ঘোষণা দিয়েছে আওয়ামী লীগ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ