• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
বেঞ্চ ও বারের সুসম্পর্কের মধ্য দিয়ে বিচার ব্যবস্থা সমৃদ্ধ হয়- নীলফামারীতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দপুর বিজ্ঞান কলেজ চত্ত্বর থেকে কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  নীলফামারী শহরে অগ্নিকান্ডে ৫ দোকান পুড়ে ছাই জলঢাকায় মিন্টু, কিশোরগঞ্জে রশিদুল, সৈয়দপুরে রিয়াদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের বিষদাত ভেঙে দেওয়া হবে: নানক সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভজে পুত্রের জয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য মাউশির ৯ নির্দেশনা ভোটের আগেই জামিন পেলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ফুলবাড়ীতে ৪৮ রোগী পেল ২৪ লাখ টাকার চিকিৎসা সহায়তার চেক ফুলবাড়ীতে চারটি চোরাই গরু উদ্ধার, গ্রেফতার তিন

তুহিনের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মকর্তাদের মানববন্ধন

Ub-2-667x500সিসি নিউজ: তিন কৃষি কর্মকর্তাকে মারধরের প্রতিবাদে নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা কাঁঠালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন তুহিনের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটা থেকে ৩০ মিনিটের এই মানববন্ধন যৌথভাবে আয়োজন করে প্রকৃচি,বিসিএস ২৬ ক্যাডার,ফাংশনাল সার্ভিস এবং ডিপ্লোমা কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের কর্মকর্তাগণ।

নীলফামারী চৌরঙ্গীমোড়ের এই কর্মসুচিতে অংশ নেন জেলার সকল কৃষি বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী, চিকিৎসক, বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারী।

মানববন্ধন চলাকালিন সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন  নীলফামারী কৃষি বিভাগের উপ পরিচালক গোলাম মোঃ ইদ্রিস, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনের সাধারন সম্পাদক এনামুল হক, বিএমএর সাধারন সম্পাদক ডাঃ শংকর কুমার রায়, জেলা মৎস্য কর্মকর্তা জাফর ইনাম প্রমুখ। বক্তরা সরকারি কর্মকর্তাকে মারধরকারী ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন তুহিনের বিচার দাবি করে।

উল্লেখ যে সরকারের বোরো ধান সংগ্রহ অভিযানে জলঢাকা উপজেলার কাঁঠালী ইউনিয়নে  কৃষকদের নামের তালিকার অনিয়মের অভিযোগ তুলে ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন তুহিন গত রবিবার (১২ জুন) দুপুরে জলঢাকা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা সাদেকুজ্জামান ও দুইজন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হরেন্দ্র রায় ও জাহাঙ্গীর আলমকে পিটিয়ে  লাঞ্চিত করে। এ ঘটনায় গত সোমবার (১৩ জুন) বিকালে জলঢাকা উপজেলার কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সাদেকুজ্জামান নিজে বাদী হয়ে জলঢাকা থানায় জলঢাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক কাঠালী ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন তুহিনকে প্রধান আসামী করে অজ্ঞাত আরও ১৫ থেকে ২০ ব্যাক্তিকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলায় গত মঙ্গলবার (১৪ জুন) রাত সাড়ে ১০টায় পুলিশ তুহিন কে গ্রেফতার করে এবং বুধবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে প্রেরন করা হয়। সেদিন তুহিনের পক্ষে জামিনের আবেদন করা হলে আজ বৃহস্পতিবার জামিনের শুনানী খারিজ করে দেন নীলফামারী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেটের আমলি আদালত ২ এর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট সেলিনা আক্তার। ফলে তুহিন জেলহাজতে রয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন তুহিনের পক্ষের আইনজীবী এ্যাডঃ আলিমুদ্দিন বসুনিয়া।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ