• শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৫১ পূর্বাহ্ন |

ফুলবাড়ীতে বাবাকে নির্যাতনের অভিযোগে ছেলে আটক, অতঃপর…

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি।। দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে পারিবারিক দ্বন্দের জের ধরে ছেলের নির্যাতনে আহত হয়ে বাবা হোমিও চিকিৎসক নিরঞ্জন রায় (৭০) হাসপাতালে। এ ঘটনায় ছেলে দ্বিপংকর রায় (৩২) কে আটক করে থানা পুলিশ।
সোমবার সকাল ১১টায় পৌর শহরের পুর্ব কাঁটাবাড়ী এলাকায় এই মার্মান্তিক ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন,ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আশ্রাফুল ইসলাম।
জানা গেছে, পৌর শহরের  কাঁটাবাড়ী গ্রামের হমিও চিকিৎসক নিরঞ্জন রায় এবং তার স্ত্রী দেবী রানী রায় এর সাথে তাদের বড় ছেলে দ্বিপংকর রায় এবং ছেলে বউ অন্তরা রায়ের বেশ কিছুদিন ধরে পারিবারিক দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এরই মাঝে সোমবার সকালে চিকিৎসক নিরঞ্জন কুমারের নিজ বাড়ীতে একটি গাছ লাগানো নিয়ে তার ছেলে বউ অন্তরা রায়ের সাথে বাকবিতন্ডা ঘটে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছেলের বউ অন্তরা রায় তার স্বামী দ্বিপংকরকে ফোন করে জানালে,ছেলে দ্বিপংকর বাড়ীতে ছুটে এসে তার বাবাকে লোহার রড দিয়ে এলোপাতারি মারপিট করে রক্তাক্ত ও জখম করে। এসময় তার মা দেবী রানী রায় বাঁধা দিতে গেলে তাকেও মারপিটের চেষ্টা করলে তিনি ভয়ে নিজ ঘরের দরজা লাগিয়ে নিজেকে রক্ষা করেন।
চিৎকার চেচামেচি শুনে একই বাড়ীতে থাকা চিকিৎসক নিরঞ্জন রায় এর শ্যালক নয়ন চন্দ্র রায় পুলিশে খবর দিলে থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে ছেলে দ্বিপংকরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে আহত অবস্থায় বাবা নিরঞ্জন রায়কে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
পরে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আশ্রাফুল ইসলাম আটক ছেলে এবং বাবাসহ পরিবারকে একত্রিত করে দুপক্ষের কথা শোনার পর আপোষ রফার মাধ্যমে মুছলেখা দিয়ে ছেলে দ্বিপংকরকে ছেড়ে দেন।
আহত বাবা নিরঞ্জন রায় কান্না বিজরিত কন্ঠে বলেন, বেশ কিছুদিন ধরে তার ছেলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ করে আসছে, এর জের ধরে আজকেও তাকে লোহার রড দিয়ে মাপিট করে জখম করেছে। এর আগেও সে নির্যাতন করেছে মুখ বুঝে সহ্য করেছি।
ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে অভিযুক্ত ছেলে দ্বিপংকরকে আটক করা হয়। কিন্তু কারো কোনো অভিযোগ না করায় মুছলেকার মাধ্যমে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ