• শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৪:৩০ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
বেঞ্চ ও বারের সুসম্পর্কের মধ্য দিয়ে বিচার ব্যবস্থা সমৃদ্ধ হয়- নীলফামারীতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দপুর বিজ্ঞান কলেজ চত্ত্বর থেকে কিশোরের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার  নীলফামারী শহরে অগ্নিকান্ডে ৫ দোকান পুড়ে ছাই জলঢাকায় মিন্টু, কিশোরগঞ্জে রশিদুল, সৈয়দপুরে রিয়াদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের বিষদাত ভেঙে দেওয়া হবে: নানক সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভজে পুত্রের জয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য মাউশির ৯ নির্দেশনা ভোটের আগেই জামিন পেলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী ফুলবাড়ীতে ৪৮ রোগী পেল ২৪ লাখ টাকার চিকিৎসা সহায়তার চেক ফুলবাড়ীতে চারটি চোরাই গরু উদ্ধার, গ্রেফতার তিন

সৈয়দপুরে ইউনিয়ন আ’লীগের দুই গ্রুপে হাতাহাতি, আহত ১০

সিসি নিউজ।। নীলফামারীর সৈয়দপুরে কামারপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভায় দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার রাতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে ইউনিয়ন শাখার সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন আহত হয়েছেন বলে একটি পক্ষ্য দাবি করেছেন। তাদের মধ্যে  ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মাষ্টারকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যান্যরা হাসপাতাল ও বিভিন্ন চিকিৎসকের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা গেছে।
কামারপুকুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জিকো আহমেদ বলেন, নতুন সদস্য সংগ্রহ ও পুরাতন সদস্য নবায়নের নিমিত্তে ফরম বিতরণের উদ্দেশ্যে ওইদিন রাতে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ অফিসে কার্যনির্বাহী কমিটির সভা ডাকা হয়। সভায় কামারপুকুর ইউনিয়নের স্থানীয় সিনিয়র নেতৃবৃন্দসহ ইউনিয়ন কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
তিনি বলেন, সভার মাঝামাঝি সময়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বহিরাগত লোকজন নিয়ে এসে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আহসানুল হক বাবুকে শারিরীক লাঞ্চিত করে। এতে বাধা দেওয়ায় তাঁর সাথে থাকা লোকজন অতর্কিত হামলা চালায়। তাদের সন্ত্রাসী হামলায় অফিসে থাকা বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করে এবং অনেক সদস্য আহত হন। আহতদের মধ্যে অন্তত ৯ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে আহত ইউনিয়ন কমিটির সদস্য আব্দুর রশিদকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় ব্যাগে থাকা সদস্য ফরমের বই ও নগদ সাড়ে ৪ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে থানায় একটি অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।
এদিকে ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেন, নৌকা প্রতিক নিয়েও ইউপি নির্বাচনে আমার সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ব্যর্থ হয়ে প্রতিহিংসা বশতঃ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে জিকো আহমেদ। আওয়ামীলীগের প্রার্থী থাকার পরও বিএনপি’র প্রার্থীকে পরাজিত করে এই ইউনিয়নের হারানো চেয়ারম্যান পদটি পূণরোদ্ধারের কারণে আমাকে সাধারণ ক্ষমা করে দলীয় পদ ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। অথচ জিকো আহমেদ তৎকালীন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মরহুম আব্বাস আলী সরকার ও সাধারণ সম্পাদক মরহুম আকতার হোসেন বাদলের স্বাক্ষর স্কানিং করে মনগড়া কমিটি গঠন করেন।
তিনি বলেন, ওই মনগড়া কমিটি নিয়ে জিকো আহমেদ একক আধিপত্য বিস্তারে অনেক সক্রিয় ও নিবেদিত নেতাকর্মীদের না জানিয়ে নিজের পছন্দের লোকজনকে নিয়ে গতকাল বুধবার রাতে সভা করছেন। যা এর আগে দলীয় কোন সভা আহবান করতে তিনি পারেননি। এসময় অনেককে নতুন সদস্য ফরম  এবং সদস্যদের নবায়নের কুপন না দেয়ায় প্রতিবাদ জানাতে দলীয় অফিসে গেলে আমাকে ঢুকতে বাধা দেয়া হয়। এতে উভয় পক্ষ্যের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। সেটাকে রংচং মাখিয়ে উপস্থাপন করে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছেন তিনি ও তার সহযোগিরা। বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর, ফরম বই ও টাকা ছিনতাইয়ের বিষয়টি একটি সাজানো নাটক। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।
সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোখছেদুল মোমিন বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বিশেষ কাজে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তিনি এলে উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি সমাধান করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

আর্কাইভ